পেঁয়াজের দাম কমলেও বেড়েছে রসুনের

0
26

আমাদের খুলনা ডেস্ক
খুলনায় পেঁয়াজের দাম কমলেও বেড়েছে রসুনের। একদিনের ব্যবধানে রসুনের দাম কেজি প্রতি বেড়েছে ১৫ থেকে ২০ টাকা। আর পেঁয়াজের দাম কমেছে ২০ থেকে ৩০ টাকা। পেঁয়াজ ডাবল সেঞ্চুরি পার করেছে দিন কয়েক আগেই। তবে গতকাল সোমবার রসুন পৌঁছেছে ডাবল সেঞ্চুরিতে। নগরীর বিভিন্ন বাজারে ঘুরে ব্যবসায়ীদের সাথে কথা বলে এ তথ্য মিলেছে।

গতকাল রাতে নগরীর ময়লাপোতা সন্ধ্যা বাজারের ব্যবসায়ী মোঃ আব্দুর রব বলেন, একদিনের ব্যবধানে রসুনের দাম বেড়েছে প্রায় ২০ টাকা। গতকাল সোমবার দেশি রসুন বিক্রি হয়েছে ২০০ টাকা কেজিতে। রবিবার এই রসুন ১৮০ টাকা দরে বিক্রি করা হয়েছে। পাইকারিতে কেজিতে ২০ টাকা মূল্য বৃদ্ধি পাওয়ায় খুচরা বাজারেও বেড়েছে। দেশি বড় রসুন ২০০ টাকা, ছোট রসুন ১৮০ টাকা এবং চায়না (বড়) ভালোমানের রসুন ২০০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। তবে পেঁয়াজের দাম কেজিতে ২০ টাকা কমেছে। রবিবার যে পেঁয়াজ বিক্রি করেছি ২৬০ টাকা দরে সোমবার সেটি বিক্রি করা করেছি ২৪০ টাকা কেজিতে। আর ২৪০ টাকার ছোট পেঁয়াজ গতকাল বিক্রি করেছি ২২০ টাকা কেজি দরে। তিনি বলেন, রসুনের দাম আগেও বেড়েছে কিন্তু কখনো পেঁয়াজের মূল্য এতো বাড়তে দেখিনি।

একই বাজারের মোঃ হুমায়ুন ও ইয়াসির আরাফাত বলেন, পেয়াজ ২২০ থেকে ২৩০ টাকা কেজি দরে বিক্রি করা হচ্ছে। রসুনে ১৮০ থেকে ২০০ টাকা কেজিতে বিক্রি করা হচ্ছে।

খালিশপুর চিত্রালী বাজারের ব্যবসায়ী মাসুদ আসিফ বলেন, রসুনের দাম বেড়েছে কেজিতে ২০ টাকা। যে রসুন রবিবার বিক্রি করেছি ১৬০ টাকা থেকে ১৮০ টাকায়। আজ (গতকাল) সেই রসুন বিক্রি হচ্ছে ১৮০ টাকা থেকে ২০০ টাকা পর্যন্ত। পাইকারী বাজারে রসুনের দাম বৃদ্ধির কারণে খুচরা বাজারেও এর প্রভাব পড়েছে।

খুলনা বড় বাজারের ব্যবসায়ী মোঃ সাগর বলেন, পাইকারী প্রতি কেজি দেশি রসুন (বড়) বিক্রি হচ্ছে ১৮০ টাকা। আর ছোট রসুন ১৬০ টাকা কেজি। যা গত রবিবার বিক্রি হয়েছে বড় রসুন ১৬০ কেজি আর ছোট রসুন ১৪০ টাকা কেজি। একই দামের কথা জানালেন বাজারের ব্যবসায়ী মোঃ রাশেদ আলী। তবে রবিবারের চেয়ে সোমবার কেজি প্রতি ২০ থেকে ৩০ টাকা পেঁয়াজের দাম কমেছে বলে তিনি জানিয়েছেন। তিনি বলেন, ২৫/২৬ বছর ব্যবসা করছি। ব্যবসায়ী জীবনে এবরাই প্রথম পেঁয়াজের মূল্য সর্বোচ্চ বৃদ্ধি পেয়েছে। তবে রসুনের শেষদিকে এসে প্রতিবছরই মূল্য বৃদ্ধি পায়। নতুন রসুন ও পেঁয়াজ বাজারে আসলে আবারও মূল্য কমে যাবে বলে তিনি আশাবাদী।

ময়লাপোতা সন্ধ্যা বাজারের ক্রেতা মোঃ সাইফুল ইসলাম বলেন, এক সপ্তাহ আগে যে রসুন ১৬০ থেকে ১৮০ টাকা কেজি দরে কিনেছি আজ সেই রসুন ১৮০ থেকে ২০০ টাকা দাম উঠেছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here