খুলনায় মস্তিষ্ক বিকৃত ক্ষুধার্ত মানুষের পাশে নগর পুলিশ

0
75

পৌঁছে দেয়া হচ্ছে দৈনিক তিন বেলার খাবার

আমাদের খুলনা ডেস্ক
করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে ব্যস্ত মহানগরী প্রায় নিস্তব্ধ হয়ে পড়েছে। সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী দোকানপাট, সুপারসপ, মার্কেটগুলো বন্ধ রয়েছে। শুধু নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য সামগ্রী ও ওষুধের দোকান ছাড়া সব দোকান বন্ধ রয়েছে। ভাইরাসের সংক্রমণের বিস্তার ঠেকাতে মানুষকে ঘরে থাকার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে। তাই খেটে খাওয়া মানুষগুলো বেকার হয়ে পড়েছে। তাদের পাশে দাড়িয়েছে সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠান, সংগঠন, ব্যক্তি। কিন্তু ফুটপাতে পড়ে থাকা মানুষগুলো পড়েছে বেকায়দায়। সড়কই তাদের ঘর, ফুটপাত তাদের বিছানা। এসব মানুষ খাবার দোকান, মানুষের কাছ থেকে চেয়ে খান আর রাস্তাতেই ঘুমান। অসুস্থ হলে সেখানেই পড়ে থাকেন তারা। আর খাবারের দোকান বন্ধ থাকায় না খেয়ে তাদের মরার উপক্রম। তারা না পারে রান্না করে খেতে না পারে সাহায্যের জন্য লাইনে দাঁড়াতে। তবে মস্তিষ্কবিকৃত এসব মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশ।

নগরীর দৌলতপুর থানা এলাকায় বসবাসকারী এসব মানুষকে তিন বেলা খাবার পৌঁছে দিচ্ছে পুলিশ। দৌলতপুর থানার অফিসার ইনচার্জ কাজী মোস্তাক আহম্মদ পিপিএম-এর উদ্যোগে অসহায় মানুষের সেবায় এগিয়ে এসেছেন কিছু মানবিক পুলিশ সদস্য। পুলিশের টহল টিম প্রতিদিন সকাল, দুপুর ও রাত তিন বেলা তাদের খাবার পৌঁছে দিচ্ছ। পুলিশের এই মানবিক ও মহৎ উদ্যোগের প্রশংসা করেছেন অনেকেই।

দৌলতপুর থানার অফিসার ইনচার্জ কাজী মোস্তাক আহম্মদ বলেন, হোটেল রেস্তোরাঁ বন্ধ থাকায় আমার থানা এলাকায় বসবাসরত মস্তিষ্কবিকৃত ব্যক্তিরা না খেয়ে মরার উপক্রম। আমরা চেষ্টা করছি সামর্থ্য অনুযায়ী তাদের মুখে কিছু খাবার তুলে দিতে। দৌলতপুরের নতুন, মিনাক্ষীরা মোড়, রেল স্টেশনসহ থানা এলাকায় ৯ জনকে তিন বেলার খাবার দেয়া হচ্ছে।

তিনি বলেন, তারা কথা বলতে পারে না। অনুভূতি দিয়ে বুঝিয়ে দেয়। খাবার না পেয়ে ক্ষুধার্ত অবস্থায় পেটে হাত দিয়ে শুয়ে থাকে রাস্তার পাশে, দোকানের পাশে, রেল স্টেশন এলাকায়। অসহায় এসব ব্যক্তিদের পাশে দাঁড়াতে পেরে ভালো লাগছে। করোনাভাইরাসের কারণে অসহায় হয়ে পড়া কর্মহীন ও খেটে খাওয়া মানুষ। সরকারের পাশাপাশি সমাজের বিত্তবানরা গরীব মেহনতি মানুষের পাশে দাঁড়ালে অসহায় কর্মহীনদের না খেয়ে থাকতে হবে না। কেউ রান্না করে দিতে না পারলে খাদ্যসামগ্রী দিলে আমরা রান্না করিয়ে দিব। তাদের সহযোগিতায় কেউ এগিয়ে আসতে চাইলে আমার সাথে (০১৭১১৮০৫৪৪৩) যোগাযোগ করার অনুরোধ জানাচ্ছি।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here